প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্যানেল গঠন করে শিক্ষক নিয়োগ সময়ের দাবী

অনলাইন ডেস্ক »

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শিক্ষার মূল ভিত্তি হলো প্রাথমিক শিক্ষা। একটি দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে প্রাথমিক শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। আজকের প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরাই আগামীর উন্নত দেশের ধারক ও বাহক। যদি শিক্ষক সংকটের জন্য পড়াশোনার নামে ক্লাস ডিঙ্গিয়ে শিক্ষার্থীদের যেনতেনভাবে প্রাথমিক স্তর টা পার করা হয় তবে এদের দিয়ে উন্নত রাষ্ট্র গঠন করা সম্ভব নয়।
আজ সারাদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে ভয়াবহ শিক্ষক সংকট চলছে। যার ফলে পঞ্চম শ্রেণীর অনেক শিক্ষার্থীদের ও বাংলা ও ইংরেজি রিডিং পড়তে সমস্যা হচ্ছে।
মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে এই ভয়াবহ শিক্ষক সংকট দূর করতে হবে। যেখানে প্রতিদিন ২০০ শিক্ষক অবসরে যাচ্ছেন, রয়েছে মাতৃত্বকালীন ছুটি, প্রশিক্ষণ কালীন ছুটি। যার ফলে একটি বিদ্যালয়ে শিক্ষক থাকে না বললেই চলে। এর বিপরীতে নতুন শিক্ষক নিয়োগ হতে হতে তিন থেকে চার বছর লেগে যায়।
প্রায় ছয় বছর পরে ২০১৮ সালের প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রায় ২৪ লক্ষ পরীক্ষার্থীদের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে ৫৫ হাজার পরীক্ষার্থী যা মোট পরীক্ষার্থীর শতকরা ২.৩ ভাগ। তাদের মধ্যে চূড়ান্তভাবে ১৮ হাজার পরীক্ষার্থী সুপারিশ প্রাপ্ত হলেও বাকি ৩৭১৪৮ জন পরীক্ষার্থী সুপারিশ প্রাপ্ত হয়নি। যেখানে স্কুলগুলোতে লক্ষাধিক শিক্ষক সংকট তার উপরে ভাইভাতে কোন ফেল নেই বলা হচ্ছে তাহলে কেন এদেরকে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না।
বরগুনা জেলার প্রায় প্রতিটি স্কুলে ই রয়েছে শিক্ষক সংকট। তার মধ্যে প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যালয় গুলোতে ১- ২ জন শিক্ষক ও পাওয়া ভার।
এমনিতেই শিক্ষক সংকট তার মধ্যে করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতায় প্রাথমিক শিক্ষা এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে।
শিক্ষা যদি জাতির মেরুদণ্ড হয় তবে শিক্ষার ভিত্তিকে নড়বড়ে রেখে উন্নত দেশে রুপান্তর সম্ভব নয়।
তাই বরগুনা জেলার প্যানেল প্রত্যাশিদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের নিকট আবেদন প্যানেলে নিয়োগ দিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক সংকট দ্রুত নিরসন করুন।

এম এ বাশার আল হেলাল,
প্যানল প্রত্যাশি, প্রাইমারি শিক্ষক প্যানেলে নিয়োগ -২০১৮,
বরগুনা, তালতলী।

শেয়ার করুন »

মন্তব্যসমূহ »

  1. করোনার এই মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্থ শিক্ষা ব্যবস্থাকে পুষিয়ে নিতে প্যানেলের কোন বিকল্প নাই ।
    তাই ২০১৮ প্রাথমিকে প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগ চাই

  2. মাননীয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী প্রাথমিকে প্রধান সমস্যা হচ্ছে শিক্ষক সংকট। ১০০% স্বাক্ষরতা অজর্ন করতে প্রাথমিকে, সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮- প্যানেল শিক্ষক নিয়োগ দিন। মুজিব শত বছরের কেউ বেকার থাকবে না, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই প্রতিশ্রুতি পূরণ করুন।

মন্তব্য করুন »