ওভালে ৫০ বছর পর টেস্ট জিতল ভারত

অনলাইন ডেস্ক »

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গত পঞ্চাশ বছর ওভালে ইংল্যান্ডকে হারাতে পারেনি ভারত। এবার বিরাট কোহলির দল পারল। চতুর্থ টেস্ট জিতল ভারত।

পাঁচ টেস্টের সিরিজে ফলাফল এখন ভারত দুই, ইংল্যান্ড এক। ওভালে গত পঞ্চাশ বছরের মধ্যে প্রথম টেস্ট ম্যাচ জিতে বিরাট কোহলির ভারত শুধু যে রেকর্ড করল তাই নয়, গত টেস্টে শোচনীয় হারের ধাক্কা ভুলে ঘুরে দাঁড়াল। ১৯৭১ সালে অজিত ওয়াডেকরের নেতৃত্বে ভারত চার উইকেটে হারিয়েছিল ইংল্যান্ডকে। সেটা ছিল ওভালে প্রথম জয়। সব মিলিয়ে ওভালে ৮৫ বছরে ১৪টি টেস্ট ম্যাচে দ্বিতীয় জয় পেল ভারত।

আসলে এই ভারতীয় দলে এমন কিছু খেলোয়াড় আছেন, যারা যে কোনো ম্যাচের ফল বদলে দিতে পারেন। ওভালেও তাই হয়েছে। শার্দুল ঠাকুর যেমন। তিনি জোরে বল করেন, নিয়মিত উইকেট তুলে নেন, এটা সকলেরই জানা, কিন্তু তিনি যে ব্যাট হাতে দলকে ভরসা দিতে পারেন, তা এই টেস্টের আগে জানা ছিল না। দুই ইনিংসেই হাফ সেঞ্চুরি করেছেন শার্দুল। তার কল্যাণেই প্রথম ইনিংসে ১৯১ রান তুলতে পেরেছিল ভারত।

প্রথম ইনিংসে ১৯১ রান একেবারেই ভালো স্কোর নয়। ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ২৯০ রান তুলে নেয়। ৯৯ রানের লিড। পিচ তখন কিছুটা সহজ হয়ে আসছে। ইংল্যান্ডের বোলাররা সুইং পাচ্ছেন না। দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করেন রোহিত শর্মা। তিনিই ম্যান অফ দ্য ম্যাচ। পূজারা ৬১ ও পন্থ ৫০ করেছেন। কোহলি করেছেন ৪৪ রান।

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা ইংল্যান্ড ভালো করেছিল। তারা প্রথম উইকেট হারায় একশ রানে। কিন্তু পঞ্চম দিনে ইংল্যান্ডের একের পর এক উইকেট পড়তে থাকে। ভারতীয় পেসাররা রিভার্স সুইং করাতে থাকেন। বুমরা, শার্দুল, উমেশ যাদব, জাদেজা সকলেই উইকেট তুলে নেন। জো রুটরা দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ২১০ রান।

রোহিত শর্মা জানিয়েছেন, ‘ম্যান অফ দ্য ম্যাচ শার্দুল ঠাকুরও হতে পারতেন। আমরা কখনো ভুলব না, প্রথম ইনিংসে কঠিন পরিস্থিতিতে কীভাবে ৩১ বলে ৫০ রান করেছেন শার্দুল।’ কোহলি বলেছেন, এভাবে জয় পাওয়ার পর তিনি ভারতীয় ক্রিকেটারদের জন্য গর্বিত। কোহলির বক্তব্য, সুযোগ পেলে তারা বিপক্ষকে চেপে ধরেন। প্রথম ইনিংসে শখানেক রানের লিড নিয়েছিল ইংল্যান্ড। তারপরেও দ্বিতীয় ইনিংসে ভারত ভালো ব্যাট করেছে। রান তুলেছে। বিপক্ষকে চেপে ধরেছে ও জয় পেয়েছে। এটাই ভারতীয় ক্রিকেটারদের চারিত্রিক দৃঢ়তা প্রমাণ করে। সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »