আখাউড়ায় নৌকার ধাক্কায় ভেঙে গেলো সেই সেতুটি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে জালাল উদ্দিন রুমি »

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

দীর্ঘ ২২ বছরেও সংযোগ সড়ক না হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ- কৃষ্ণনগর গ্রামের নয়াখালের উপর নির্মিত সেতুটি ভেঙে গেছে।

শুক্রবার একটি ইটবোঝাই নৌকার ধাক্কায় সেতুটির মাঝখান দিয়ে পুরোপুরি ভেঙে যায়।

জানা যায়, নৌকাটি জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ডিজিটাল ব্রিকফিল্ড থেকে ৭ হাজার ইটবোঝাই করে আখাউড়া উপজেলার গোলখার এলাকায় যাওয়ার পথে সেতুর নিচ দিয়ে যাওয়ার সময় খালে প্রবল স্রোত থাকায় মাঝি নৌকাটি নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেননি। একপর্যায়ে নৌকাটি সেতুর পিলারের সাথে ধাক্কা লাগলে সেতুটি ভেঙে নৌকার উপরে পড়ে। ইটসহ নৌকাটি পানিতে ডুবে যায়। এ সময় নৌকায় থাকা শাহবাজপুর ইউনিয়নের রাজবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল খালেক (৪৫) ও হবি (৪২) নামের দুই শ্রমিক আহত হয়।

প্রত্যক্ষ্যদর্শী বনগজ পূর্বপাড়ার বাসিন্দা মো. আরমান খান জানান, আমি দূরে দাঁড়িয়ে ছিলাম।হঠাৎ দেখি নৌকাটি সেতুর পিলারে ধাক্কা মারে এতে সেতুটি ভেঙে পড়ে যায়। আমি দৌঁড়ে এসে দেখি নৌকায় থাকা লোকজন নৌকা থেকে বের হয়ে আসছে।

নৌকার মাঝি মো. রফিক জানান, আমরা শাহবাজপুর থেকে ইট নিয়ে ঘোলখার যাওয়ার পথে এই সেতুর নিচে আসার পর এখানে প্রবল স্রোতে নৌকার মাথাটা সেতুর পিলারে ধাক্কা লাগার সাথে সাথে সেতুটি ভেঙে পড়ে।

এলজিইডির আখাউড়া উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ বলেন, ইউএনওর মাধ্যমে সেতুটি ভেঙে যাওয়ার খবর পেয়ে উপসহকারী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলামকে পাঠানো হয়েছে। ওই প্রকৌশলী সরেজমিন পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আখাউড়া উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে এলজিইডির অধীনে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিলের অর্থে ১২০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৮ ফুট প্রস্থের সেতুটি বনগজ ও কৃষ্ণনগর গ্রামের মধ্যবর্তী জায়গায় খালের ওপর নির্মাণ করা হয়। কিন্তু সংযোগ সড়ক না থাকায় সেতুটি অব্যবহৃত পড়ে থাকে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »