শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে টসে হারলো বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক »

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসের শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। টাইগারদের ঐতিহাসিক এই ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নিয়েছে জিম্বাবুয়ে।

বৃহস্পতিবার হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করা নুরুল হাসান হাসান টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচের একাদশে সুযোগ পেয়েছেন।

আর ওয়ানডে সিরিজে সুযোগ না পাওয়া সৌম্য সরকার ফিরেছেন টি -টোয়েন্টির একাদশে। তবে বিশ্রামে রাখা হয়েছে ওয়ানডে সিরিজে দুর্দান্ত বোলিং করা তাসকিন আহমেদকে।

ম্যাচটি সংক্ষিপ্ত ভার্সনে বাংলাদেশের শততম ম্যাচ। কাকতালীয় ভাবে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ তাদের প্রথম ম্যাচটি খেলেছিল এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই। ২০০৬ সালে শাহরিয়ার নাফিসের নেতৃত্বে ম্যাচটি ৪৩ রানে জিতেছিল বাংলাদেশ। ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

আজকের ম্যাচটি খেলতে নেমে নতুন এক কীর্তি গড়েছেন সাকিব আল হাসান। টি-টোয়েন্টিতে প্রথম ও শততম ম্যাচ খেলা বাংলাদেশি প্রথম খেলোয়াড় তিনি।

জিম্বাবুয়ে দলের দুই খেলোয়াড় ব্রেন্ডন টেইলর ও শন উইলিয়ামসও বাংলাদেশের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অংশ ছিলেন। এ বছর বাংলাদেশ দল এ ফর্মেটে এ পর্যন্ত তিনটি ম্যাচ খেলেছে। তিনটিই নিউজিল্যান্ড সফরে এবং তিনটিতেই পরাজিত হয়েছে টাইগাররা। শততম ম্যাচটি সংক্ষিপ্ত ভার্সনে এ বছর পরাজয়ের বৃত্ত থেকে এসে জয়ের ধারায় ফেরার একটি সুযোগ হতে পারে টাইগারদের জন্য। এই তিন ম্যাচে জয়ী হতে পারলে জিম্বাবুয়ে সফরে প্রথমবার শতভাগ জয় নিয়ে দেশে ফিরবে টাইগাররা।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দলের রেকর্ড খুব একটা ভালো নয়। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এ পর্যন্ত জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশ মুখোমুখি হয়েছে ১৩ বার। যার মধ্যে বাংলাদেশের ৯ জয়, পরাজয় ৪টি। সর্বশেষ ২০১৩ সালে বাংলাদেশ সফরে দুই ম্যাচের সিরিজটি ১-১ ব্যবধানে শেষ করেছিল জিম্বাবুয়ে। তবে মুখোমুখি হওয়া শেষ পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই জিতেছিল বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশ এ পর্যন্ত ম্যাচ খেলেছে ৯৯টি। যার মধ্যে জয় মাত্র ৩২ এবং পরাজয় ৬৫টিতে। বাকি দুই ম্যাচ হয়েছে পরিত্যক্ত।

বাংলাদেশ দল: মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নাইম শেখ, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), শেখ মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম।

জিম্বাবুয়ে দল: সিকান্দার রাজা (অধিনায়ক), রায়ান বার্ল, রেগিস চাকাভা (উইকেটরক্ষক), লুক জঙওয়ে, ওয়েসলি মাধেভেরে, তারিসাই মুসাকান্দা, তাদিওয়ানাশে মারুমানি, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, ব্লেসিং মুজারাবানি, ডিয়ন মায়ার্স, রিচার্ড এনগারাভা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »