অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবি বিএনপির

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে সুমন »

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে হতাহত শ্রমিকদের প্রত্যেক পরিবারকে আইএলও কনভেনশন আইন অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

মঙ্গলবার দুপুরে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের সাত সদস্যের প্রতিনিধি দল কারখানাটি পরিদর্শন শেষে তিনি এ দাবি জানান।

নজরুল ইসলাম বলেন, এ দুর্ঘটনার জন্য সরকার ও সরকাূরের সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো দায়ী। তাদের দায়িত্বে অবহেলার কারণেই এতো শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এর দায় দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। রানা প্লাজায় দুর্ঘটনায় দেশি-বিদেশি সমন্বয়ে যেভাবে ক্ষতিগ্রস্থদের আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছিল এখানেও সেই পরিমাণ সহায়তা দেয়া উচিৎ।

এছাড়াও, কারখানাটিতে নিয়ম বহির্ভূত ভাবে শিশু শ্রম ও নানা অনিয়মের সমালোচনাও করেন বিএনপির এই কেন্দ্রীয় নেতা।

নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্ব পরিদর্শনে আসা বিএনপির এই প্রতিনিধি দল আরও ছিলেন দলটির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এডভোকেট তৈমুর আলম খোন্দকার, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, বিএনপির ঢাকা বিভাগর সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আব্দুস সালাম।

এর আগে বিএনপির প্রতিনিধি দলটি ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হলে কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশে থাকা ও ছবি তোলা নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীরা মারামারি ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

একপর্যায়ে নিজেদের মধ্যে ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনাও ঘটে। পরে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুরোধে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে নেতারা চলে যাবার পরে স্থানীয় নেতাকর্মীদর মধ্যে ফের দ্বিতীয় দফায় সংঘর্ষ হয়।

এদিকে, দুর্ঘটনা কবলিত কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা শুরু করেছে কারখানা কর্তপক্ষ। বেতন নিতে সকল থেকেই শ্রমিকরা কারখানায় আসতে শুরু করেন।

গত বৃহস্পতিবার (০৮ জুলাই) সজীব গ্রুপের হাশেম ফুডস এন্ড বেভারেজ কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৫২ জন প্রাণ হারায়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »