যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে নির্যাতন

গাইবান্ধা থেকে আমিনুর রহমান »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাইবান্ধা সদরে যৌতুকের টাকা দিতে নাপারায় শারীরিক নির্যাতনের স্বীকার হলেন নাছরিন আক্তার নামের এক গৃহবধূ। স্বামী ও তার পরিবারের অমানুষিক নির্যাতনের স্বীকার হয়ে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে ওই গৃহবধূ।

তিনি সদর উপজেলার সাহাপাড়া ইউনিয়নের নান্দিনা গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের স্ত্রী।

এ ঘটনায় নাছরিনের ভাই রুহুল আমিন সোমবার (২৪ মে) সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সাদুল্লাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের উত্তর কাজী বাড়ী সন্তোলা গ্রামের মৃত নছির উদ্দিনের মেয়ে নাছরিন আক্তারের সঙ্গে সদর উপজেলার সাহাপাড়া ইউনিয়নের নান্দীনা গ্রামের হোসেন আলীর পুত্র সাদ্দাম হোসেনের ২০১৩ সালের ১৯ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় যৌতুক হিসাবে নগদ ৬০,০০০ (ষাট হাজার), অলংকার বাবদ ৬০, ০০০(ষাট হাজার) এবং অন্যান্য প্রায় ২০০০০০(দুই লক্ষ) টাকার আসবাবপত্র প্রদান করেন। এছাড়াও প্রতি মাসে তার বড় ভাই আল আমিন ৩/৪ হাজার করে দিয়ে আসছেন।

যৌতুক লোভী স্বামী সাদ্দাম যৌতুক হিসাবে আর পাঁচ লক্ষ টাকার চাপ প্রয়োগ করে। টাকা নিয়ে আসতে অস্বীকার করায় নাছরিন আক্তারকে অমানুষীক নির্যতনের শিকার হতে হয়।

শশুর ও শাশুরীরর প্ররোচনায় স্মামী সাদ্দাম নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

গত রবিবার (২৩ মে) রাত ১১.০০ ঘটিকায় নাছরিনকে আবারো যৌতুক হিসাবে ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে আসতে বললে রাজী নাহওয়ায় স্ত্রীকে বেধড়ক মারধর করে নাছরিন আক্তারের স্বামী ও তার পরিবার।

এতে নাছরিন অসুস্থ হয়ে পড়লে তার ভাই রুহুল আমিন সংবাদ পেয়ে বোনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এপ্রসঙ্গে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহফুজুর রহমান বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগটি তদন্ত করে আইন অনুযায়ী দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »