বিশ্ব মৌমাছি দিবসে অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সখ্য

বিশ্বকণ্ঠ ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তিন দিন গোসল করেননি হলিউড তারকা অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। তার শরীরে মৌমাছি এসে পড়ছে, ফের উড়ছে এমন এক ছবি তুলতে তিনি এ পদ্ধতি বেছে নেন।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফি তার এ ছবিটি তোলে। ৪৫ বছরের অভিনেত্রী ও অ্যাক্টিভিস্ট মৌমাছি রক্ষার গুরুত্ব নিয়েও কথা বলেন।

শৌখিন মৌমাছি চাষি ড্যান উইন্টারস জোলিকে এ ধরনের ছবি তুলতে সাহায্য করেন। মৌমাছিগুলো উড়ে এসে জোলির গায়ে পড়ছে, গা বেয়ে মুখে গিয়ে বসছে, কখনো কাঁধে, এমনকি চিবুকে, কল্পনাই করা যায় না। আর তিনটি দিন এ ধরনের ফটোশুটের পাল্লায় পড়ে গোসল করতেই ভুলে গিয়েছিলেন জোলি।

তবে জোলি বলেন, এভাবে মৌমাছিকে গায়ে যেখানে সেখানে উড়ে এসে বসতে দেওয়া খুবই মজার। আর গোসল না করার রহস্য হচ্ছে শরীরের ঘ্রাণ, শ্যাম্পু ও পারফিউমের সুবাস ভিন্ন হলে তা মৌমাছির কাছে অচেনা হয়ে পড়তে পারে এবং তারা হয়ত আর জোলির শরীরে উড়ে এসে নাও বসতে পারে।

ইউনেস্কোর এ উদ্যোগে অ্যাঞ্জেলিনা জোলিকে মৌমাছির ‘গডমাদার’ হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। নারী মৌমাছিদের রক্ষা ও তাদের লালনের গুরুত্ব বোঝাতে এমন ক্যাম্পেইনে বেছে নেওয়া হয়েছে জোলিকে। এভাবে মৌমাছি উড়ে এসে আমার শরীর জুড়ে বসতে বসতে একটি পোষাকের ভেতরে ঢুকে যায়। বিষয়টি সেই পুরাতন কৌতুকের মত, মজা করে বলেন জোলি।

বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, আমি মৌমাছিটিকে অনুভব করলাম আমার হাঁটুতে, এরপর পায়ে এবং তারপর ভাবলাম যদি কামড় দিয়ে বসে তবে সেটি হবে এক ভয়ানক স্থান কারণ সে শরীরের অমন জায়গার খুব কাছাকাছি গিয়ে সারাক্ষণ বসে ছিল যতক্ষণ ছবি তোলা শেষ না হয়। সব মৌমাছিগুলো চলে যাওয়ার পর আমি বাধ্য হলাম স্কার্ট তুলে ধরতে এবং সে অবশেষে চলে গেল।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »