২য় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শুরু শুক্রবার

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অনলাইন ডেস্ক:
টঙ্গীর তুরাগ পাড়ে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে আগামীকাল শুক্রবার থেকে। দ্বিতীয় পর্বের এই ইজতেমায় যোগ দিতে এরই মধ্যে তুরাগ পাড়ে জড়ো হতে শুরু করেছেন তাবলীগ জামাতের অনুসারীরা। শুক্রবার আমবয়ানের পর থেকে ইজতেমার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। আগামী রবিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শেষ হবে।

এই পর্বে সা’দ ভক্তরা ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন। এর আগে প্রচণ্ড শীত উপেক্ষা করে প্রথম পর্ব শেষ করে জুবায়েরপন্থীরা।

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের মতোই কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা থাকছে দ্বিতীয় পর্বেও। এরই মধ্যে ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কড়া নজরদারি শুরু হয়েছে। দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায় রেকর্ড সংখ্যক দেশি-বিদেশি মুসল্লি অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা করছেন আয়োজকরা।

ইজতেমা ময়দানে বৃহস্পতিবারের মধ্যেই দেশের বিভিন্ন এলাকা ও বিদেশ থেকে তাবলিগ জামাতের অনুসারীরা জড়ো হবেন। তবে ১৯ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাত পর্যন্ত মুসল্লিদের আসা অব্যাহত থাকবে। রোববার বেলা ১১টার দিকে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ২০২০ সালের বিশ্ব ইজতেমা।

ভারতের মাওলানা সা’দ কান্দলভীর অনুসারীর সমন্বয়কারী হাজী মনির হোসেন বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের কার্যক্রম চালানোর জন্য ময়দানের দায়িত্বও বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্টদের। স্থানীয় প্রশাসন, গাজীপুর সিটি করপোরেশন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও তাবলিগের সাথিরা ইতিমধ্যে ইজতেমা ময়দানের ভেতর এবং বাইরের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন।

দ্বিতীয় পর্বের আয়োজনে নেতৃত্বে রয়েছেন সা’দপন্থী মুরুব্বি ওয়াসেকুল ইসলাম ও শাহাবউদ্দিন নাসিম। তিন দিনের এই বিশ্ব ইজতেমায় আমল, আখলাক, দুনিয়া ও আখেরাতে সুখ-শান্তির লক্ষ্যে দিন-রাত বয়ান চলবে প্রথম পর্বের মতোই। ময়দানের নিচু স্থানে বালি ফেলা হচ্ছে, ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও চারপাশে ব্লিচিং পাউডার ছিটানো হচ্ছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপির) কমিশনার আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বেও থাকবে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা। দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় থাকছে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। র‍্যাব, পুলিশ ও সাদা পোশাকে থাকছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় আট হাজার সদস্য। পুরো ইজতেমা ময়দান জুড়ে সিসিটিভি, ওয়াচ টাওয়ার ও মেটাল ডিটেক্টরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। নিরাপত্তা বলয় থাকবে ইজতেমা মাঠ ও মাঠের বাইরে।’

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, ‘প্রথম পর্বের ইজতেমা শেষে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ইজতেমা ময়দান স্থানীয় প্রশাসন বুঝে নিয়ে দ্বিতীয় পর্বের মুরুব্বিদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ময়দানের মাইক, লাইট, শামিয়ানার চটসহ যাবতীয় মালামাল বুঝিয়ে দেওয়া হয়। বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বের মুসল্লিদের জন্যও থাকবে বিশেষ কিছু ব্যবস্থা। আয়োজকদের সঙ্গে স্থানীয় প্রশাসন এসব কাজে সমন্বয় করছে।’

তিনি আরও বলেন, ২০২১ সালের ইজতেমাও দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম পর্ব হবে ৮, ৯ ও ১০ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ১৫, ১৬ ও ১৭ জানুয়ারি।’

উল্লেখ্য, গত চার বছর ধরে ৬৪টি জেলার মধ্যে ৩২ জেলা করে দুই পর্বে তাবলীগ জামাতের ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিল। গত বছর ইজতেমার একক নিয়ন্ত্রণ নিতে ইজতেমা ময়দানে দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে কয়েকজন মুসল্লি হতাহত হন। এরপর থেকে যোবায়েরপন্থী এবং সা’দপন্থী নামে তাবলীগ জামাতের ইজতেমায় দুটি গ্রুপের সৃষ্টি হয়। ১৯৬৭ সাল থেকে টঙ্গীর এই ময়দানে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »