শ্রীপুরে পোশাক শ্রমিককে সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

গাজীপুর থেকে মোফাজ্জল হোসেন »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাজীপুরের শ্রীপুরে আশ্রয় দেওয়ার কথা বলে এক পোশাক শ্রমিককে (৩২) সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের মুলাইদ গ্রামের এলিম বাড়ি এলাকায় সোমবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। ভিকটিম মঙ্গলবার শ্রীপুর থানায় চিহ্নিত চারজনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছেন। শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্তরা হল একই ইউনিয়নের আমতৈল এলাকার মৃত নজুম উদ্দিনের ছেলে মিজান ফকির, মিজানের বাড়ির ভাড়াটিয়া নুরুল ইসলামের ছেলে সুলতান, সুরুজ মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন ওরফে সুবল এবং রানা। অভিযুক্ত সুলতানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সে মুলাইদ এলাকার মিজান ফকিরের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

মামলার বিবরণ ও ভিকটিমের ভাষ্যমতে, ভিকটিম মুলাইদের একটি কারখানার অপারেটর। সে স্থানীয় শহীদের বাড়ির ভাড়াটিয়া। তাকে নানা ধরণের অপবাদ দিয়ে সোমবার (১৯ এপ্রিল) দিবাগত রাত ৩টার দিকে বাড়ির মালিক বাসা থেকে বের করে দেয়। তাঁর এ অবস্থা দেখে ভাড়া বাসার মালিকের প্রতিবেশী মিজান ফকির ভিকটিমকে তার বাসায় আশ্রয় দেয়ার কথা বলে নিয়ে যায়। রাত আনুমাণিক সাড়ে ৩টায় তার বাড়ির একটি ভাড়া কক্ষে নিয়ে গিয়ে মিজান ফকির তাকে জোরপূবর্ক ধর্ষণ করে। অন্যান্য অভিযুক্তরা তাকে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুর ১টা পর্যন্ত একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরে দুপুর সোয়া ১টার দিকে তাকে কক্ষ থেকে বের করে দেয়।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার জানান, ভিকটিম তার জনৈক স্বজনকে সাথে নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে মো. সুলতান উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভিকটিমের চিকিৎসা প্রতিবেদনের জন্য তাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত সুলতান উদ্দিনকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানা হয়েছে। অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

মোফাজ্জল হোসেন
২০.০৪.২০২১

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »