লোহাগাড়ায় বঙ্গবন্ধুর ছবি ছিঁড়ে আবর্জনা স্তুপে নিক্ষেপের অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
চট্টগ্রাম লোহাগাড়া উপজেলায় সরকারের অনুমোদনকৃত মুক্তিযুদ্ধের বিজয়মেলা ভাংচুর করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছবি ছিঁড়ে আবর্জনার স্তুপে নিক্ষেপ করার অভিযোগ উঠেছে।

একই সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রফেসর ডঃ আবুরেজা মোঃ নেজাম উদ্দীন নদভী লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী (বাবুল) এর ছবিও ছিঁড়ে ফেলা হয়।

জানা যায়, মেলায় প্রবেশ গেইটে টাঙানো ব্যানারে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী এবং স্থানীয় এমপি, চেয়ারম্যানের ছবি ছিল। ব্যানারটি ছিঁড়ে পার্শ্বে পানির নালায় আবর্জনা স্তুপে নিক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। ছবি নর্দমায় ফেলার প্রতিবাদ করায় ওই পুলিশ কর্মকর্তা গালাগালি ও খারাপ ব্যবহারও করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ নিয়ে লোহাগাড়ায় নতুন করে হড্ডগোল সৃষ্টি হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের মনে ক্ষোভ ও হতাশ বিরাজ করছে। এ নিয়ে গত ১৬ জানুয়ারি বিকাল ৫টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের অফিসে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে।

সাংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগ লিপি পাঠ করেন মুক্তিযুদ্ধের যুদ্ধাকালীন কমান্ডার মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। এসময় উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংবাদিক নুরুল ইসলাম, আবদুল হামিদ বেঙ্গল, আবুল কালাম, আবদুশ শুক্কুর, রফিক, দিদার প্রমুখ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সরকারের অনুমোদনক্রমে গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর থেকে এ বছরের ১৫ জানুয়ারী পর্যন্ত বিজয়মেলা উদযাপনে বটতলী সিটিজেন পার্কের মাঠে মেলার কার্যক্রম শুরু হয়। এ মেলা উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান। প্রতি বছর এ মুক্তিযোদ্ধা মেলা আয়োজন করা হলে কিছু কুচক্রি মহলের কানঘুষা, অপপ্রচার ও বানচালের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকে। ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবে কিছু অনলাইনে ও প্রিন্ট মিডিয়ায় নাচ, গান চলছে বলে মনগড়া সংবাদ প্রচারের অযুহাতে পুলিশ গত ১২ জানুয়ারি রাত্রে মেলা কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ না করে হঠাৎ করে অভিযান চালিয়ে মেলার কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।
মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আক্ষপে করে আরও জানান, প্রাণপণ যুদ্ধ করে দেশের স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছি। কিন্তু বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগ এনে আমাদের বিজয় মেলা বন্ধ করে দিয়ে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাকে চরমভাবে অপমাণিত করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানায় এবং সুস্থ তদন্ত পূর্বক ষড়যন্ত্রকারীদেরকে শাস্তির দাবী জানায়।

এ ব্যাপারে লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনর্চাজ জাকির হোসেন মাহমুদ জানান, মুক্তিযোদ্ধা আমাদের দেশের সম্পদ। তাদের সম্মান সকলের উর্ধ্বে। তাদের এ ত্যাগের বিনিময়ে এ সোনার বাংলা পেয়েছি। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে বিরোধের প্রশ্নই আসেনা। এ মেলায় স্থানীয়রা অশ্লীল কার্যকলাপ অভিযোগ করায় আইনশৃঙ্খলা ভঙ্গের আশাঙ্কা করে উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করি। তিনি মেলার অশ্লীলতার অনুমতি দেয়নি বলে জানালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে পদক্ষেপ গ্রহণ করি। তবে এ সুযোগে কুচক্রীমহল দুষ্কৃতিকারীরা আমাদের বঙ্গবন্ধুর ছবিযুক্ত ব্যানার ছিঁড়ে আবর্জনা নর্দমায় নিক্ষেপ করেছে। তা দ্রুত তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »