ফতুল্লায় ফ্ল্যাটে জমে থাকা রান্নার গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ ১১

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি আবাসিক ভবনের ৩য় তলার ফ্ল্যাটে জমে থাকা রান্নার গ্যাস বিস্ফোরণে নারী ও শিশুসহ ১১ জন দগ্ধ হয়েছেন।

শুক্রবার ভোরে ফতুল্লার তল্লা এলাকার মডেল গার্মেন্টসের দক্ষিণ পাশে স্থানীয় মফিজুল ইসলামের তিন তলা বাড়িতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দগ্ধরা হলেন, হাবিবুর রহমান, লিমন, সাথী, মীম, মাহিরা (৩ মাস), আলেয়া, সোনাহার, শান্তি, সামিউল, মনোয়ারা ও অজ্ঞাত এক ব্যক্তি।

তাদের মধ্যে লিমন, সাথী, মীম, মাহিরা (৩ মাস) ও আলেয়াকে শেখ হাসিনা বার্ণ এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়েছে। অপর ছয় জনকে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, বিস্ফোরণে ভয়াবহতা এতটাই ছিল যে, এ সময় ওই ফ্ল্যাটের এক পাশের দেয়ালও ধ্বসে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোসহ দগ্ধদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই বাড়ির তৃতীয় তলায় বেশ কয়েকটি পরিবার বসবাস করেন। তারা কমন (একটি) রান্না ঘরেই রান্নার কাজ করতেন।

ফ্ল্যাটের একজন বাসিন্দা আব্দুল্লাহ জানান, ঘুমের মধ্যেই হঠাৎ বিকট শব্দে একটি দরজা ভেঙে আমার উপর এসে পরে। কিছু বুঝে উঠার আগেই দেখি পাশের ঘরে আগুন এবং দুটি ঘরের দেয়ার ধ্বসে পাশের তিনতলা ভবনের ছাদে পড়ে আছে। বের হয়ে দেখি একটি পরিবারেরই ৬ জন দগ্ধ অবস্থায় কাতড়াচ্ছে।

আশপাশের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সেহেরীর সময় এই ঘটনা ঘটায় আশপাশের সকলেই জেগে গিয়েছিল। অনেকে বালু, পানি দিয়ে তাৎক্ষণিক আগুন নেভানোর চেষ্টা করায় আগুন ছড়াতে পারেনি।

ঘটনাস্থল থেকে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন জানান, ওই বাড়ির তৃতীয় তলায় বেশ কয়েকটি পরিবার বসবাস করেন। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, রাতে একটি পরিবারের লোকজন চুলার বার্ণার বন্ধ না করেই ঘুমিয়ে পড়েন। এতে চূলা থেকে গ্যাস বের হয়ে রান্নাঘরসহ অন্যান্য ঘরে ছড়িয়ে জমাট বেঁধে থাকে। ভোরে সেহেরীর আগে রান্নার জন্য চুলায় আগুন জ্বালালে গ্যাসের পাইপ লাইনের বিস্ফোরণ ঘটে। এ সময় এক শিশু, ছয় নারী ও চার পুরুষ আগুনে দগ্ধ হন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »