পাকিস্তানের জঙ্গিদের সাথে যোগাযোগ ছিল মামুনুলের

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পাকিস্তানের একটি গোষ্ঠীর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছিল হেফাজত নেতা মামুনুল হকের। এছাড়া সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার কাছ থেকে অর্থ নিয়েছেন তিনি।

রোববার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. হারুন-অর-রশীদ নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন।

রিমান্ডে থাকা মামুনুল হকের বিষয়ে তিনি বলেন, ২০০৫ সালে মামুনুল হক পাকিস্তানে যান। সেখান থেকে পরামর্শ ও প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলা, অগ্নি সংযোগ ও সহিংসতার ঘটনা ঘটায়। এছাড়া সরকার উৎখাতে মামুনুল সব ধরনের পরিকল্পনাও করে।

তিনি বলেন, পাকিস্তানের একটি গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিল মামুনুল হকের। তার ভগ্নিপতি নেয়ামতউল্লাহর মাধ্যমে পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছিল তার। বঙ্গবন্ধুর খুনি মেজর ডালিম হচ্ছেন মাওলানা মামুনুল হকের আপন ভায়রা ভাই।

পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠী, গ্রেনেড হামলার আসামি এবং জামায়াতের শীর্ষ দুই নেতার সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে কওমি মাদ্রাসার ছাত্রদের ব্যবহার করে সরকার উৎখাতের ছক এঁকেছিলেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক।

ডিসি হারুন বলেন, মামুনুল হক পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার কাছ থেকে অর্থ নিয়েছে। তার টার্গেট ছিল সরকার উৎখাত করা। বাবরি মসজিদের নাম করে ফান্ড কালেকশন করে কাওমি মাদ্রাসার ছাত্রদের দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা ছিল তার।

এদিকে তার ভাই মাহফুজুল হক যদি কোনো মামলায় জড়িত থাকে তবে তাকেও গ্রেফতারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »