টিকা চেয়ে দেওয়া চিঠির জবাব দেয়নি সেরাম

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটকে আরও টিকার জন্য চিঠি দেওয়ো হয়েছে। তবে সেরামের পক্ষ থেকে এখনও কোনও জবাব দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। মঙ্গলবার ( ৬ এপ্রিল) অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) এবং কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রিপেয়ার্ডনেস অ্যান্ড ডিপ্লয়মেন্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্রোরা এ তথ্য জানান।

অধ্যাপক সেব্রিনা বলেন, গত মার্চের শেষের দিকে সেরাম ইনস্টিটিউটকে আরও টিকা পাওয়ার কথা জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। তবে স্বাস্থ্য অধিদফতর সরাসরি সেরামকে চিঠি দেয়নি। তিনি বলেন, আমরা আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা সেরাম ইনস্টিটিউটকে জানিয়েছে। তবে জবাব এখনও আসেনি।

‘আমরা এখনও আশা করছি পেয়ে যাবো, তবে স্পেসিফিক ডেট এখনও জানি না’, যোগ করেন তিনি।

এদিকে, গত ১ এপ্রিল আগামী কয়েকদিনের ভেতরেই ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী কোভিশিল্ডের পরবর্তী চালান আসবে বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সেদিন (বৃহস্পতিবার) মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে টিকা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মা এমনটাই জানিয়েছে। আর পরবর্তী চালানে ২০ লাখের মতো ডোজ আসতে পারে, যোগ করেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আমি গতকাল (বুধবার) বেক্সিমকোর সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে জানিয়েছেন, দুই থেকে চার দিনের মধ্যে কিছু টিকা পেতে পারে। তারা (বেক্সিমকো)-তো সেরামের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে।

“আমাদের কন্ট্রাক্ট করা ভ্যাকসিন এগুলো, আমাদের টাকা পয়সা পেইড করা ভ্যাকসিন…না দেওয়াটা সঠিক নয়”। সেজন্য আমরা যা করার দরকার করছি, আমাকে জানানো হয়েছে তিন থেকে চার দিনের মধ্যে কিছু, হয়তো ২০ লাখের মতো ডোজ আমরা পাবো।

প্রসঙ্গত, গত ৫ নভেম্বর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ত্রিপক্ষীয় চুক্তি সই করে। চুক্তির আওতায় সেরাম ইনস্টিটিউট তিন কোটি টিকা বাংলাদেশে রফতানি করবে বলে কথা রয়েছে, যার মধ্যে প্রতিমাসে বাংলাদেশের ৫০ লাখ ডোজ করে টিকা পাওয়ার কথা ছিল। এগুলো ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা। এখন পর্যন্ত ভারত থেকে টিকা এসেছে মোট এক কেটি দুই লাখ ডোজ।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »