গণপরিবহন বন্ধ, সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ি-সিএনজির দাপট

অনলাইন ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে এক সপ্তাহের জন্য সারাদেশে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

সোমবার থেকে শুরু হওয়া এ নিষেধাজ্ঞা চলবে আগামী ১১ এপ্রিল (রোববার) পর্যন্ত।

এ কারণে বন্ধ করা হয়েছে বাস, ট্রেন, লঞ্চ ও বিমান।

তবে সীমিত আকারে সরকারি-বেসরকারি অফিস খোলা রয়েছে।

সোমবার সকালে সড়কে দেখা যায়, রাস্তায় যাত্রীবাহী বাস নেই। তবে ব্যক্তিগত গাড়ি, রিকশা, সিএনজি ও মোটরসাইকেলের বেশ চাপ রয়েছে।

রিকশায় চেপে, পায়ে হেঁটে অনেকেই অফিসের পথে যাত্রা করেছেন।

মালিবাগের আবুল হোটেল মোড়ে এসে দেখা যায়, গাড়ির বেশ চাপ রয়েছে। মোড়টিতে একতলা ও দ্বিতল কয়েকটি যাত্রীবাহী বাস দেখা যায়। বাসগুলোর ভেতরে যাত্রীও দেখা যায়। তবে এসব বাসের যাত্রী বা চালক কারো সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

সেখানে দায়িত্বরত একজন পুলিশ সদস্য বলেন, ‘সকালে রাস্তায় গাড়ি বেশ কম ছিল। কিন্তু বেলা বাড়ার সাথে সাথে গাড়ির চাপও বেড়েছে। এ কারণে আমাদের ট্রাফিক সামাল দিতে হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘রাস্তায় যাত্রীবাহী পরিবহন চলছে না। তবে রিকশা, সিএনজি, ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ফলে তিন দিক থেকে ট্রাফিক সিগন্যাল দিতে হচ্ছে। তবে অন্যান্য দিনের তুলনায় আজ চাপ কম।’

মঙ্গলে গ্রহে দেখা যাবে হেলিকপ্টার

মতিঝিল, কাকরাইল, পল্টন, শাহবাগ অঞ্চলেও প্রচুর পরিমাণে ব্যক্তিগত গাড়ি, সিএনজি, রিকশা মোটরসাইকেল চলাচল করতে দেখা গেছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »