এই প্রথম ৩ পুরুষাঙ্গ নিয়ে শিশুর জন্ম

বিশ্বকণ্ঠ ডেস্ক »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পৃথিবীর ইতিহাসে এই প্রথম তিনটি পুরুষাঙ্গ নিয়ে ভূমিষ্ঠ হলো শিশু। বিষ্ময় শিশুকে ঘিরে চরম উত্তেজনার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে চিকিৎসক মহলে। তাঁর অস্ত্রোপচারের বিষয়টি স্থান পেয়েছে শীর্ষ মেডিকেল জার্নালে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ১৮ এর খবরে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ইরাকের বাগদাদের দুহকে শিশুটির জন্ম হয়। জন্মের পর প্রথম দিকে তাঁর তেমন কোনও শারীরিক সমস্যা ছিলো না কিন্তু যখন তার তিন মাস বয়স তখন থেকে তার পুরুষাঙ্গে সমস্যা শুরু হয়। শিশুটির বাবা-মা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় চিকিৎসার জন্য। তারপরই বিষ্ময়ের শুরু।

চিকিৎসক দলের প্রধান শাকির সালিম জাবালির বক্তব্য অনুযায়ী, এক রাতে শিশুটির মা ও বাবার নজরে আসে মূল পুরুষাঙ্গে পাশে রয়েছে দুটি অতিরিক্ত মাংশপিণ্ড। তারপরই ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসেন তারা। যার একটি স্বাভাবিক পুরুষাঙ্গের ঠিক পাশ দিয়ে গজিয়ে উঠেছিল এবং অপরটি অণ্ডকোষের নিচ থেকে তৈরি হয়েছিল। ক্রমশ ফুলে উঠছিল সেই মাংসপিণ্ড।

ডাক্তাররা পরীক্ষা করে দেখেন, মূল অঙ্গটি কাজ করছে, বাকি দুটির সে রকম কোন কার্যক্ষমতা নেই। তখনই বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এখন পর্যন্ত শিশুটির শরীরে কোন সমস্যা দেখা দেয়নি।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, একটি গজাচ্ছে প্রধান পুরুষাঙ্গের গোড়া থেকেই, আর একটি বের হচ্ছে মূত্রথলির তলার দিকে। তবে নতুন দুটি জননাঙ্গ বাদ দিতে হবে কারণ, তাতে কোন মূত্রনালি জন্মায়নি।
ইরাকের চিকিৎসকরা এই ঘটনায় আরও বেশি আশ্চর্য হয়েছেন এই কারণে, শিশুটি যখন মায়ের গর্ভে ছিল, মা কোনও ওষুধ খাননি। এমনকি পরিবারের ইতিহাসেও কারও কোনও জিনগত ত্রুটি নেই বলেই জানায় পরিবারের সদস্যরা।

তিনটি পুরুষাঙ্গ বিরল শারীরিক ত্রুটি। যা ৫-৬ মিলিয়ন শিশুর মধ্যে একজনের শরীরে দেখা যায়। এই শিশুই প্রথম, যার বিষয়টি সরকারি ভাবে নথিভুক্ত হলো। তবে বাকি দুটি পুরুষাঙ্গ কার্যকর না হওয়ায় সেই দুটিকে অস্ত্রোপচারের পরে বাদ দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে আরও এক শিশু তিনটি পুরুষাঙ্গ নিয়ে জন্মেছিল। তবে সেই শিশুর কথা মেডিকেলের কোনও জার্নালে নথিভুক্ত হয়নি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »