অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় প্রেমিকাকে হত্যা

মিঠাপুকুর (রংপুর) থেকে মো. শামিম রানা »

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রংপুরের মিঠাপুকুরে এক কিশোরীকে হত্যার পর ভুট্টা ক্ষেতে ফেলে রাখার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। মোসলেমা খাতুন (১৫) নামের ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তার প্রেমিক তাকে হত্যা করে।

রোববার আদালতের মাধ্যমে ঘাতক প্রেমিককে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

অভিযুক্ত নাহিদ হাসান (২২) উপজেলার দলসিংহপুর গ্রামের বাসিন্দা। সে মোসলেমার চাচাতো ভাই।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত মোসলেমা আর নাহিদ সম্পর্কে চাচাতো ভাই বোন ছিলেন। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই সুবাদে উভয়ের মধ্যে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক হয়। একপর্যায়ে পাশের জেলা দিনাজপুরে চাকুরিতে যোগ দেয় নাহিদ। ঘটনার ১৫ দিন আগে মোসলেমা প্রেমিক নাহিদকে জানায় সে অন্তঃসত্ত্বা। কিন্তু বিষয়টি নাহিদ অস্বীকার করলে উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়।

এরপর মোসলেমা নাহিদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে দেখা করতে বলে। ঘটনাচক্রে ওই ভুট্টা ক্ষেতে উভয়ের দেখা হলে অন্তঃসত্ত্বা মোসলেমা তার সন্তান রাখতে চায়। কিন্তু নাহিদ এতে অসম্মতি জানিয়ে মোসলেমাকে সন্তান নষ্ট করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। এতে অসম্মতি জানালে একপর্যায়ে নাহিদ উত্তেজিত হয়ে ওই ভুট্টা ক্ষেতেই গলায় ওড়না পেঁচিয়ে মোসলেমাকে হত্যা করে।

ঘটনার পর বাসায় ফিরে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে থাকে নাহিদ। কিন্তু নাহিদের শেষ রক্ষা হয়নি। পুলিশের বিশেষ অভিযানে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন >> মিঠাপুকুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর কিশোরীর লাশ উদ্ধার

রংপুরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) কামরুজ্জামান জানান, গ্রেফতারকৃত আসামিকে আদালতের মাধ্যমে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »